ঢাকামঙ্গলবার , ২৯ নভেম্বর ২০২২

জিপিএ ৫ পেয়ে মা- বাবা’র স্বপ্ন পূরণ করতে চায় “ঐতিহ্য”

দৈনিক প্রথম বাংলাদেশ
নভেম্বর ২৯, ২০২২ ৭:২৯ অপরাহ্ণ
Link Copied!

   
                       

গঙ্গাচড়া (রংপুর) প্রতিনিধিঃ

রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলার ৪ নং সদর ইউ’পি চেয়ারম্যান মাজহারুল ইসলাম লেবু ও রুবিনা আক্তার রুনী দম্পতির প্রথম তনয়া মুঈদা মাজহার ঐতিহ্য এবারের এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে বিজ্ঞান বিভাগ হতে ১৩’শ মার্কের মধ্যে ১২’শ ২৭ মার্ক পেয়ে জিপিএ-৫ (গোল্ডেন এ+) পেয়েছে। সে রংপুর পুলিশ লাইন্স স্কুল এন্ড কলেজ এর বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী। গঙ্গাচড়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব বাঁচ্চা মিঞা’র নাতনী এবং সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম এর ভাতিজি মুঈদা মাজহার ঐতিহ্য বলেন, ‘আমার পরিবারের দাদা-দাদীমা,নানু-নানুমা, এবং মা-বাবা আমার আদর্শ। আমি আমার মা-বাবার মত ভাল একজন মানুষ হতে চাই।

দীর্ঘক্ষণ পড়াশোনা না করলেও আমি নিয়মিত রুটিন করে পড়াশোনা করেছি। আমি মনেপ্রাণে বিশ্বাস করি, ভাল ফলাফল করতে হলে নিয়মিত অধ্যাবসায়ের বিকল্প নেই- যা সকলেরই করা উচিত। সে ভবিষ্যতে সেনাবাহীতে ডাক্তার হিসেবে চাকরি করার ইচ্ছা পোষণ করেন। ঐতিহ্য পড়াশোনার পাশাপাশি নিয়মিত খেলাধুলাও করেন। ব্যাডমিন্টন খেলা তার প্রিয় এছাড়া বই পড়া, বাংলাদেশ দলের ক্রিকেট খেলা দেখা তার খুবই পছন্দের। বিভিন্ন দেশের ভাষা শেখা এবং গান করতে খুব পছন্দ করে। মুঈদা মাজহার ঐতিহ্য’র মা-বাবা এ ভাল ফলাফলের ব্যাপারে বলেন, ‘মা-বাবা হিসেবে আমরা মেয়ের এ ফলাফলে আসলেই অত্যন্ত গর্বিত ও আনন্দিত। আমাদের দুটি কন্যা সন্তান- ঐতিহ্য বড়। আর ছোট মেয়ে মাইসূরা মাজহার প্রকৃতি ক্লাস থ্রি’তে-একই বিদ্যালয়ের ছাত্রী।

আমরা আমাদের সন্তানদের রবি ঠাকুরের একটি কবিতার ‘ভাল মন্দ যাহাই আসুক, সত্যকে লও সহজে’- এই দুটি লাইনের উদ্ধৃতি সবসময় দেই। আর আমারা সন্তানদের কাছে প্রত্যাশা করি, তারা যেন ভাল মানুষ হয়। আমরা কখনই পড়াশোনা বা কোন কিছুই বাচ্চাদের উপর চাপিয়ে দেইনি। ঐতিহ্যকে পড়ার কথা কখনই বলতে হয়নি। সে পড়াশোনার ব্যাপারে অত্যন্ত মনোযোগী। সবাই আমাদের মেয়ের জন্য দোয়া করবেন। এদিকে চেয়ারম্যান তনয়া মুঈদা মাজহার ঐতিহ্য জিপিএ পাওয়ায় শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছে গঙ্গাচড়া অনলাইন প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা ও নতুন দিনের দৈনিক ‘ঢাকা প্রতিদিন’ এর উপজেলা প্রতিনিধি মোঃ সবুজ মিয়াসহ উপজেলার বিভিন্ন সামাজিক,রাজনৈতিক ও সাংবাদিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।