ঢাকামঙ্গলবার , ৩১ জানুয়ারি ২০২৩

বাকি মাত্র একদিন, বাণিজ্য মেলায় অফারের ছড়াছড়ি

সুমন মিয়া
জানুয়ারি ৩১, ২০২৩ ৯:০০ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

   
                       

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ
আর মাত্র একদিন পরই পর্দা নামবে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের পূর্বাচলের ২৭তম ঢ‌াকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার। বাণিজ্য মেলার ৩০তম দিন। প্রায় শেষ মুহূর্তে মেলায় ক্রেতা দর্শনার্থীদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো।

শেষ মুহূর্তে জমে উঠেছে মেলা। প্রায় প্রতিটি প্রতিষ্ঠানই দিচ্ছে বিভিন্ন অফার। ক্রেতা-দর্শনার্থীরাও ভিড় জমা‌চ্ছেন স্টলগুলোতে। কাপড়, আসবাবপত্র, রান্না সামগ্রী, প্রসাধন থেকে শুরু করে খাদ্যপণ্যের ওপর রয়েছে বিশেষ ছাড়। সেই সঙ্গে দেওয়া হচ্ছে বিভিন্ন ধরনের উপহার। মেলার শেষ মুহূর্তের নানা অফারে আকৃষ্ট হয়ে গৃহবধূরা কেনাকাটায় ব্যস্ত সময় পাড় করছেন।

কেউ সপরিবারে, কেউ বন্ধু-বান্ধবী, স্কুল-কলেজের সহপাঠীদের নিয়ে দলবেঁধে মেলায় এসেছেন। এদের একটি অংশ মেলায় ঘুরতে এলেও অনেকে ব্যস্ত কেনাকাটায়।

কোনো কোনো বিক্রেতা একটি পণ্যের সঙ্গে একটি পণ্য ফ্রি দিচ্ছেন। অনেকে তাদের পণ্য প্যাকেজ (১টির সঙ্গে ৫/৭ গিফট) আকারে বিক্রি করছেন। আবার কেউ কেউ পণ্যের মূল্যের উপর সরাসরি ১০-৫০ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দিচ্ছেন। এবার শুরুর দিকে ক্রেতা ও বিক্রি কম হলেও শেষের দিকে বেচাকেনা ভালো হওয়ায় বিক্রেতারা সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন। এবারের বাণিজ্য মেলায় বিক্রি ১৫০ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে বলে মনে করছে আয়োজক প্রতিষ্ঠান রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো।

 

এদিকে মেলায় ক্রেতাদের বেশি আগ্রহ দেখা গেছে গৃহস্থালি বিভিন্ন পণ্যের প্রতি। প্লাস্টিক পণ্যের পাশাপাশি রয়েছে প্রেসার কুকার, জুস মেকার, ওভেন, রাইস কুকার, ইস্ত্রি, ইন্ডাকশন চুলা, ফ্যানসহ নানা ধরনের ইলেকট্রনিক ও গৃহস্থালি পণ্য। যেসব স্টলে ছাড় বেশি সেখানে ক্রেতাদের ভিড়ও বেশি দেখা গেছে।

বিশেষ করে ব্লেজারের দোকান গুলোতে (৪০-৫০)% ছাড় দিয়ে ব্লেজার বিক্রি করছে বিক্রেতারা। ব্লেজারের দোকান গুলোতে চোখের পড়ার মত ভিড় ছিল।

সোমবার (৩০ জানুয়ারি) সরেজমিনে দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত মেলায় ঘুরে শেষ মুহূর্তের কেনাবেচার এমন চিত্র দেখা গেছে।

পণ্যের দাম নিয়ে বাণিজ্য মেলায় বহুজাতিক কোম্পানিগুলোর বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ না পাওয়া গেলেও ক্রেতাদের মেলা কেন্দ্রিক গড়ে উঠা বেশির ভাগ ছোটোখাটো খাবারের দোকান এবং নন ব্রান্ডের স্টলে পণ্যের দাম মাত্রাতিরিক্ত রাখছেন এমন অভিযোগ বেশির ভাগ ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের।

ক্রেতাদের অভিযোগ, মেলার সব খাবারের দাম মূল্য তালিকা থেকে টাকা বেশি রাখছেন ক্যান্টিনে দায়িত্বে থাকা কর্মীরা। দাম বেশি রাখায় পণ্য কেনার পর বিল দিতে গিয়ে অনেক ক্রেতা তাদের ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন।

এ বিষয়ে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণের সহকারী পরিচালক আসিফ আল আজাদ বলেন, মেলায় কেউ অতিরিক্ত দাম রাখবে তা মেনে নেওয়া যায় না। কোনো দোকানে যদি প্রোডাক্টের দাম বেশি রাখে ভোক্তার কাছ থেকে তাহলে সেই দোকানির কাছ থেকে ভোক্তার অবশ্যই মানি রিসিট চাইতে হবে। ভোক্তাদের উদ্দেশে বলতে চাই, কোনো দোকানে যদি রিসিট না দেয় তাহলে তার থেকে পণ্য কিনবেন না। মানি রিসিট চাওয়া একজন ভোক্তার অধিকার।

রূপগঞ্জ থেকে আসা একজন গৃহকর্মী ছালেহা বেগম বলেন, “পরিবার নিয়ে মেলা প্রাঙ্গণে এসেছি। গৃহস্থালি কাজের জন্য কিছু বিশেষ ছাড়ে পণ্য কিনেছি।পরিবারের ছেলে-মেয়ের জন্য কিছু কেনাকাটা করেছি।”

এবারের বাণিজ্য মেলার সময় ১ সপ্তাহ বাড়ানোর আবেদন করা হলেও তা নাকোজ করে দিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় । তাই এবারের বাণিজ্য মেলা চলবে ৩১ই জানুয়ারি পর্যন্ত।

এবারের বাণিজ্য মেলায় কি পরিমাণ বেচাকেনা হতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্য মেলার পরিচালক জানান, গতবার মেলায় ৭০ কোটি টাকার বেচাকেনা হয়েছিল। এবার আমরা আশা করছি ১৫০ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে।