ঢাকাশুক্রবার , ১৬ ডিসেম্বর ২০২২

মহান বিজয়ে দিবসে স্বাধীনতা দিবসের পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ!

রিয়াদুন্নবী রিয়াদ
ডিসেম্বর ১৬, ২০২২ ৮:৪৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!
   
                       

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

মহান বিজয় দিবসকে ‘স্বাধীনতা দিবস’ বলে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেছে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) আন্দোলন মঞ্চ বলে পরিচিত শিক্ষক-কর্মকর্তাদের একাংশের সংগঠন অধিকার সুরক্ষা পরিষদ। আজ ১৬ ডিসেম্বর (শুক্রবার) বিজয় দিবস হলেও সকাল সাড়ে ১০টায় বেরোবির স্বাধীনতা স্মারক বেদিতে অর্পণ করা পুষ্পাস্তবক লাগানো লিফলেটে তারা ‘মহান স্বাধীনতা দিবস ২০২২’ উল্লেখ করেন।
বিষয়টি নিয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মধ্যে সমালোচনার ঝড় শুরু হলে বেলা ১২টার দিকে সুরক্ষা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ও জনসংযোগ দপ্তরের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ আলী বেদিতে দেয়া ওই ফুলের রিং থেকে ‘মহান স্বাধীনতা দিবস-২০২২’ লেখা লিফলেটটি খুলে নতুন করে ‘মহান বিজয় দিবস-২০২২’ লেখা অন্য একটি লিফলেট লাগিয়ে দিয়ে আসে। কিন্তু তার আগেই এটির আসল ছবি ও ভিডিও ভাইরাল হয়ে যায়। বিজয়ের ৫২ বছর পরও ‘বিজয় দিবস’কে ‘স্বাধীনতা দিবস’ উল্লেখ করে অধিকার সুরক্ষা পরিষদ পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বেরোবির ছাত্র নেতারাসহ অনেকে।
জানা যায়, মহান বিজয় দিবস ২০২২ উপলক্ষে বেরোবির স্বাধীনতা স্মারকে প্রশাসনের আয়োজনে সকাল ১০টা থেকে বিভিন্ন দপ্তর ও সংগঠনের পক্ষ থেকে পুস্পার্ঘ অর্পণ করা হয়। এ সময় আন্দোলন মঞ্চ বলে পরিচিত শিক্ষক-কর্মকর্তাদের একাংশের সংগঠন অধিকার সুরক্ষা পরিষদের সভাপতি প্রফেসর ড. মোঃ মতিউর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলীর নের্তৃত্বে ‘মহান স্বাধীনতা দিবস-২০২২’ লিফলেট লিখা সম্বলিত পুষ্পার্ঘ অর্পণ করেন সংগঠনের সদস্য বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-কর্মকর্তা ও কর্মচারিরা। এ সময় উক্ত শ্রদ্ধা নিবেদনে অংশ নেন বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ও লাইব্রেরি পরিচালক প্রফেসর ড. মোঃ গাজী মাজহারুল আনোয়ার, বঙ্গবন্ধু হলের প্রভোস্ট ড. বিজন মোহন চাকী, বহিরাঙ্গন পরিচালক সাব্বীর আহমেদ চৌধুরী, শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও সহকারী প্রক্টর সৈয়দ আনোয়ারুল আজিম, লোকপ্রশাসন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান আসাদুজ্জামান মন্ডল, ভূগোল ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমান রিপন, উপ-রেজিস্ট্রার জাহেদুর রহমান, জিয়াউল হক, ফিরোজ আল মামুন, সহকারী রেজিস্ট্রার আবু তাহের মোস্তফা আল আরিফ, প্লানিং অফিসার আব্দুর রহিমসহ বেশ কিছু কর্মকর্তা-কর্মচারী।
বিষয়টি জানাজানি হলে বেলা ১২টার দিকে জনসংযোগের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ আলী স্বাধীনতা স্মারক চত্ত্বরে গিয়ে লিফলেটটি পরিবর্তন করে মহান বিজয় দিবস দিয়ে ছবি তুলে নেন এবং সেটি পরে সংগঠনের সভাপতি ড. মতিউর রহমান চালাকি করে তার ফেসবুকে প্রচার করেন। এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে প্রফেসর ড. মতিউর রহমান বলেন, আসলে এটি প্রিন্টিং মিসটেক হয়েছে। ওটা একজনকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল সে এটা করেছে, পরে যখন বুঝতে পেরেছি তখন সেটা ঠিক করে দিয়েছি। তবে বিজয় দিবসের স্থানে স্বাধীনতা দিবস লিখা কোন ধরণের প্রিন্টিং মিসটেক জিজ্ঞেস করলে তিনি কোনো সদুত্তর দিতে পারেন নি।