ঢাকাশনিবার , ১৭ ডিসেম্বর ২০২২

আগুন থেকে উদ্ধার করা হলো গার্মেন্টস কর্মীর মৃতদেহ

তারিকুল জুয়েল
ডিসেম্বর ১৭, ২০২২ ৬:৩৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!
   
                       

তারিকুল জুয়েল, গাজীপুরঃ
গাজীপুর মহানগরের কোনাবাড়ীতে পারিবারিক কলহের জেরে আগুনে পুড়ে স্বামী স্ত্রীর মৃত্যুর হয় বলে এলাকাবাসী জানিয়েছেন। কোনাবাড়ীর জরুন এলাকার শুকুর সিকদারের বাড়িতে শনিবার (১৭ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ৫ টার দিকে ওই ঘটনা ঘটে। নিহত দম্পতি হলেন, নীলফামারী জেলার ডোমরা থানার নুরি ইসলামের মেয়ে নাসরিন আক্তার(৩৬) এবং নীলফামারীর ডিমলা থানার ডাঙ্গার হাট গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে শফিয়ার রহমান (৩৮)।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, শুকুর শিকদারের ছয়তলা ভবনের নিচতলাতে ভাড়া থাকতেন ওই দম্পতি। সকালে সিকিউরিটি গার্ড ওই রুমে আগুনের ধোঁয়া দেখতে পেয়ে চিৎকার চেঁচামেচি করলে স্থানীয় লোকজন ঘটনাস্থলে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। লোকজন এসে ঘরের দরজা ভেতর থেকে বন্ধ পেয়ে শাবল দিয়ে ভেঙে ঘরে প্রবেশ করেন। এদের মধ্যে একজন ৯৯৯ নাম্বারে ফোন দিলে ঘটনাস্থলে পুলিশ ও সিআইডি এসে আলামত সংগ্রহ করেন। কোনাবাড়ি থানার ওসি জানান, আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি, সিআইডিও এসেছিল। ছোটখাটো বিষয় নিয়ে আমার আব্বু আম্মুর মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া হতো। গত রাতেও ঝগড়া করেছে। তিন চার দিন আগেও ঝগড়া হয় তাদের মধ্যে। এসব বলতেই কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন আগুনে দগ্ধ হয়ে মারা যাওয়া সুফিয়ান রহমান ও নাসরিন আক্তার দম্পত্তির মাদ্রাসায় পড়ুয়া বড় ছেলে শাহরিয়ার নাফিস। নাসরীন আক্তারের ভাই নজরুল ইসলাম বলেন, মাঝে মধ্যেই তাদের মধ্যে ঝগড়া হতো। গত কয়েকদিন আগেও ঝামেলা মিটিয়ে গেছি। বোনটা সুখ পেলনা বিয়ের পর থেকে। এখন ছেলে দুটোর কি হবে!

নিহত নাসরিন কাশিমপুরের তাসনিয়া গার্মেন্টসে সুয়িং অপারেটর হিসেবে চাকরী করে সংসার চালাতো। নিহত দম্পতির দুই ছেলের মধ্যে বড় ছেলে শাহরিয়ার নাফিস মা বাবার সাথে থেকে কোনাবাড়ীর একটি মাদ্রাসায় লেখাপড়া করত। ছোট ছেলে তাদের গ্রামের বাড়ীতে দাদীর সাথে থাকত।