ঢাকারবিবার , ২৭ নভেম্বর ২০২২

বাগমারায় বেড়েছে অবৈধ ইট ভাটা, কয়লা’র বদলে, পুড়ছে কাঠ

দৈনিক প্রথম বাংলাদেশ
নভেম্বর ২৭, ২০২২ ৮:৪৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!
   
                       

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
রাজশাহী জেলার বাগমারা উপজেলায় লাইসেন্সবিহীন অবৈধ ভাবে স্থাপিত ও পরিচালিত ইটভাটা বন্ধে একটি পরিবেশবাদীও মানবাধিকার সংগঠন অবৈধ ইটভাটার কার্যক্রম বন্ধে প্রশাসনের নিষ্ক্রিয়তা কে চ্যালেঞ্জ করে মহামান্য হাইকোর্ট বিভাগে জনস্বার্থে ৬৬৭৯/২০১৯ নং ১ টি রীট পিটিশন দায়ের এর পরিপ্রেক্ষিতে হাই কোর্ট বিভাগ গত ২৩/৬/২০১৯ তারিখে শুনানী অন্তে মহাপরিচালক পরিবেশ অধিদপ্তর, বিভাগীয় পরিচালক ,পরিবেশন অধিদপ্তর রাজশাহী, জেলা প্রশাসক, রাজশাহী উপ-পরিচালক, পরিবেশ অফিস রাজশাহী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বাগমারা সহ অন্যান্য বিবাদী গণের প্রতি রুল নিশি জারি করত: বাগমারা উপজেলায় লাইসেন্স বিহীন অবৈধ ভাবে স্থাপিত ও পরিচালিত ঐ ৯ টি ইট ভাটার ক্লিন ও অফিস বন্ধ সহ ইট প্রস্তুত এর সরঞ্জামাদি জব্দ করার আদেশ প্রদান করেন।

আদালতের উক্ত আদেশ সকল বিবাদী গণের প্রতি যথারীতি জারি হওয়ায় গত ৯.৯.২০১৯ ইং তারিখে ঐ সকল ইটভাটার ক্লিন বন্ধ করা হয়।কিন্তু বর্তমানে আদালতের আদেশ অমান্য করে পুনরায় টাটা ব্রিকস ( মাদারিগঞ্জ ), জে.বি.কে ( ভাগনদী ) , হিরো ব্রিকস ( ধামিন কামনগর ) এ.জেড.কে (কাতিলা ) সহ আদালত এর আদেশ এ বন্ধ ৯ টির মধ্যে ৬টি ইট ভাটার কার্যক্রম বহাল তবিয়তে চলছে। সংশ্লিষ্ট রীট পিটিশনকারী আইন জীবী জানান যে, আমরা শুনেছি আদালত এর আদেশ অমান্য করে পুনরায় কিছু ইটভাটা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। খুব দ্রুত এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট বিবাদী গনকে অবহতি করে দ্রুত পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

পরিবেশ অধিদপ্তরের রাজশাহী বিভাগের উপ-পরিচালক মোঃ মেজ-বাবুল আলম এর কাছ থেকে এসব অবৈধ ইটভাটার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, রাজশাহী জেলার বাগমারা উপজেলায় এসব অবৈধ ইটভাটা চালু হওয়ার বিষয় আমি জানতাম না। এসব অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান অব্যাহত আছে, আমাদের রাজশাহী জেলা অফিসার কে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হবে দ্রুত এসব ইটভাটার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।