ঢাকামঙ্গলবার , ২৩ জানুয়ারি ২০২৪

নওগাঁ জেলাসহ দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৮.১ ডিগ্রি তাপমাত্রা ঘন কুয়াশায় ও তীব্র শীতে কাঁপছে মানুষ

উজ্জ্বল কুমার সরকার
জানুয়ারি ২৩, ২০২৪ ১০:৩২ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!
   
                       

উজ্জ্বল কুমার সরকার নওগাঁঃ

দেশের উত্তরের সীমান্তবর্তী জেলা নওগাঁয় আজ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৮ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এটি চলতি মৌসুমে জেলার সর্বনিম্ন তাপমাত্রার রেকর্ড। একইসঙ্গে দেশে আজকের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। রোববারের চেয়ে আজ সোমবার তাপমাত্রা ১ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস কমেছে। তাপমাত্রা কমে যাওয়ায় জেলার স্কুলগুলো বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।গতকাল জেলায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রার রেকর্ড করা হয় ৯ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বদলগাছী আবহাওয়া অধিদপ্তরের টেলিপ্রিন্টার অপারেটর আরমান হোসেন বলেন, গত দুই সপ্তাহ ধরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কিছু বেশি কিংবা কম থাকছে। আজ সকাল ৬টায় তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৮ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এটি নওগাঁতে এই মৌসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। শৈত্যপ্রবাহের কারণে শীতের তীব্রতা আরও বেড়েছে। সঙ্গে ঠান্ডা বাতাস বয়ে যাওয়ায় শীতের প্রকোপ অসহনীয় হয়ে উঠেছে। এই অবস্থা আরও তিন-চার দিন চলতে পারে। পুরো জানুয়ারি জুড়েই শীতের তীব্রতা থাকতে পারে বলে জানান ওই কর্মকর্তা। আকাশ মেঘলা, কুয়াশা ও হিমেল বাতাসের কারণে বেড়েছে শীতের তীব্রতা। জনজীবন জবুথবু হয়ে পড়েছে। নেমে এসেছে তীব্র শীতের ভয়। আর খেটে খাওয়া মানুষেরা পড়েছেন বেকায়দায়। নওগাঁর সাধারণ মানুষ শীতের কারণে প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে বের হচ্ছেন না। আর যারা জীবিকার তাগিদে কাজের সন্ধানে বের হচ্ছেন, তারা পড়েছেন চরম বেকায়দায়। দিনের বেলাও হেডলাইট জ্বালিয়ে গাড়ি চলতে দেখা যায়। শহরে লোক ও যানবাহন চলাচল অনেক কম। মাঠে কৃষিকাজ প্রায় হচ্ছেই না। শীতার্ত ও ছিন্নমূল মানুষেরা কনকনে শীতের তীব্রতা থেকে রক্ষার জন্য অনেকেই বাড়ির আঙিনা ও ফুটপাতসহ চায়ের দোকানের চুলায় বসে আগুন পোহাচ্ছেন।অন্যদিকে দিন দিন শীতের প্রকোপ বৃদ্ধি পাওয়ায় নওগাঁ ২৫০ শয্যা জেলারেল হাসপাতাল ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শীতজনিত রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। বেশি আক্রান্ত হচ্ছে শিশু ও বয়স্করা। শীতের কারণে বেড়েছে ডায়রিয়া ও নিউমোনিয়ার মতো ঠান্ডাজনিত রোগের প্রকোপ বাড়ছে। সোমবার জেলার প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্কুল মাদরাসা ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। জেলা শিক্ষা অফিসার মো. লুৎফর রহমান ও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, গতকাল রোববার ছুটির বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে। পাঠদান বন্ধ থাকবে। তবে শিক্ষকরা বিদ্যালয়ে অন্যান্য কাজের জন্য উপস্থিত থাকবেন।এ বিষয়ে জানতে চাইলে জেলা শিক্ষা অফিসার মো. লুৎফর রহমান সমকালকে বলেন, শুধুমাত্র আজ সোমবার বন্ধ থাকবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো। তবে তাপমাত্রা কম থাকলে ছুটি আরও কয়েকদিন থাকতে পারে। এ সিদ্ধান্ত পরে জানানো হবে।