ঢাকারবিবার , ৩১ মার্চ ২০২৪

আমাদের সীমাবদ্ধতা ও ব্যার্থতার কারনেই নয় বছর আগে ইতালিতে বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইট বন্ধ হয়ে গিয়েছিলো – সাজ্জাদুল হাসান ( এম পি )

জাকির হোসেন সুমন
মার্চ ৩১, ২০২৪ ১২:২৯ অপরাহ্ণ
Link Copied!
   
                       

জাকির হোসেন সুমন, ব্যাুরো প্রধান ইউরোপ :

বিদেশে প্রবাসীরা বাংলাদেশের দূতের দায়িত্ব পালন করছেন। আপনারা যতো পরিশ্রম এবং আন্তরিকতা দেখাবেন ততবেশি সার্থকতা আসবে। ভেনিসে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন আয়োজিত ইফতার মাহফিলে প্রধান অথিতির ভাষনে এ কথা বলেন বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্হায়ী কমিটির চেয়ারম্যান সাজ্জাদুল হাসান ( এমপি) । গতকাল শনিবার, ভেনিসের বাংলাদেশী অধ্যুষিত মেসত্রের ঢাকা বিরিয়ানি হাউজে ‘মিট দ্যা প্রেস’ শিরনামের ব্যানারে ইফতার আয়োজন করা হয়। এ সময় ঢাকার সিভিল এভিয়েমন এবং ট্যুরিজম সচিব এমডি মোকাম্মেল হোসেন ও বিমানের ম্যানেজিং ডিরেক্টর শফিউল আজিম , জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শ্যামল দত্ত , ৭১ টেলিভিশনের মোজ্জাম্মেল বাবু সহ ঢাকা থেকে আগত কর্মকর্তা, সাংবাদিক এবং কম্যুনিটির ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

সাজ্জাদুল হাসান ( এম পি ) আরো বলেন , মাননিয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস এবং জাতীয় দিবসে ইতালির প্রবাসীদের ঢাকা-রোম রুটের ফ্লাইট উপহার দিয়েছেন। রোমের পরে ভেনিস এবং নাপোলিতে বেশি সংখ্যক বাংলাদেশী থাকেন। আপনাদের দাবি অনুযায়ী এই দুই শহরের সাথে বিমানের কানেকটিভিটি তৈরীর উদ্যোগ আমরা গ্রহণ করবো। ব্যানারে মিট দ্যা প্রেস লেখা থাকলেও মূলত ইফতার মাহফিল ও আলোচনা সভা করা হয়েছে। সাংবাদিকদের কোনো প্রশ্ন করার সুযোগ দেয়া হয়নি। ভেনিস বাংলাদেশ প্রেসক্লাব ইতালির সভাপতি জাকির হোসেন সুমন বিমানের ফ্লাইট নিয়ে কথা বলতে চাইলে ইতালি আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন বাধা প্রদান করেন, পরে প্রধান অতিথি সাজ্জাদুল হাসান ( এম পি) প্রশ্ন করতে বল্লে সাংবাদিক জাকির হোসেন সুমন বলেন , ভেনেতো বিভাগে প্রায় ৬৫ হাজার বাংলাদেশী বসবাস করছে। তাদের সকলের দাবী সপ্তাহে অন্তত ১ টি ফ্লাইট ভেনিস টু ঢাকা দেয়া যায় কিনা। প্রধান অতিথি জবাবে বলেন বিষয়টি বিবেচনা করা হবে। তবে ইফতারি শুরুর ১৫/২০ মিনিট আগে অতিথিরা এসে উপস্থিত হওয়ায় সময় সংক্ষেপের কারনে ভেনিস ও আশপাশের শরর হতে আগত কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ , রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ , সাংবাদিক ও ট্রাভেল এজেন্সির নেতৃবৃন্দ কথা বলতে না পারায় হতাশা প্রকাশ করেন। তবে বাংলাদেশ কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ প্রত্যাশা করেন উত্তর ইতলিতে বসবাসকারী বাংলাদেশীদের দাবী দ্রুত সময়ে বাস্তবায়ন করবেন সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ।