ঢাকাশনিবার , ৭ জানুয়ারি ২০২৩

জুয়ার আসরে সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে ভোঁদড় কাশেমসহ জুয়ারীদের

মোঃ আজিজুর বিশ্বাস,
জানুয়ারি ৭, ২০২৩ ১১:৫৬ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!
   
                       

মোঃ আজিজুর বিশ্বাস,স্টাফ রিপোর্টার

নড়াইল জেলার লোহাগড়া পৌরসভার সিংগা ও মশাঘুনি এলাকায় চলছে দিনের আলোতে লোকের পাহারায় তাসের জুয়ারিদের জুয়ার আসর, ৬ জানুয়ারী শুক্রবার বিকাল আনুমানিক ৫ টার দিকে গোপন সংবাদ পেয়ে পৌরসভার মশাঘুনী গ্রামের মজিদ এর মাছের ঘেরের কুড়ে ঘরের মধ্যে জুয়ার আসর বসেছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে সাংবাদিকরা ওই মাছের ঘেরের কুড়ে ঘরের সামনে গেলে সাংবাদিকদের দেখে ভোঁদড় দিল জুয়ারীরা।

সেখানে সাংবাদিকদের ক্যামেরায় ধরা পড়ে এলাকার বিভিন্ন অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকা এবং জুয়ার বোর্ডের মূল হোতা সিংগা গ্রামের কাশেম সর্দার, বাকা গ্রামের রুহল, সিংগা গ্রামের মিলনসহ আরও আনুমানিক ৮/ ১০/ জনকে, এসময় সেখানে উপস্থিত দেখা গিয়েছে ঘের মালিক মজিদ কে, এরপরে সাংবাদিকদের ম্যানেজ করার চেষ্টা করেন জুয়াড়িরা ও ঘের মালিক। জুয়ারি কাশেম নিউজ না করার জন্য সাংবাদিকদের ম্যানেজ করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে, সাংবাদিকদের মোবাইল ফোনে কল দিয়ে নিউজ করলে দেখে নিবেন বলে জানান কাশেম। গোপন সংবাদে আরও জানা যায় প্রতিনিয়ত সিংগা গ্রামের বিভিন্ন বাড়ি, ঘরে বাগনে এলাকার বাইরের লোকজন সহ এসে লক্ষ লক্ষ টাকার জুয়া খেলে তারা এগুলো দেখেও না দেখে থাকতে হয় তাদের।

এ সময় ওখানে উপস্থিত কয়েকজনের সাথে কথা বলে জানা যায় প্রতি গেমে ঘের মালিক কে ১০০ শত টাকা করে দিয়ে ওই ঘরে জুয়ার আসর চলে। আরো জানা গেছে টাকা দিয়ে রাখা পাহারাদা রয়েছেন ওখানে ২/জন. চারিদিকে দেখা সোনা করে তারা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন বলেন কাশেম ও তার সহকর্মীরা শুধু এলাকায় না লোহাগড়া উপজেলা বিভিন্ন এলাকায় জুয়া ও নারী গঠিত কাজে জড়িত রয়েছে।
এবং কাশেম এর টাকার জোরে সে এসব অপকর্ম চালিয়ে যায়, কয়েকজন আরো বলেন এদের মধ্যে কিছু লোক আছে তারা সারাদিন তাস খেলে এবং রাতে চুরি সহ বিভিন্ন অনৈতিক কাজ করে বেড়াই, আরও জানা গেছে এর আগে কাশেম এর নামে মেয়েলি বিষয় নিউজ করাই শেষ সাংবাদিক হুমকি দিয়েছিল তার নামে লোহাগড়া থানায় সাংবাদিক কে হুমকির বিষয়ে জিডি করা আছে, এবিষয়ে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করে এলাকাবাসী৷