ঢাকাবৃহস্পতিবার , ১৬ মে ২০২৪

বিশ্বের অন্যতম আলোচিত শহর ইতালির ভেনিস, শহরে ঢুকতে হলে দিতে হয় প্রবেশ ফি

জাকির হোসেন সুমন
মে ১৬, ২০২৪ ১১:২৩ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!
   
                       

জাকির হোসেন সুমন , ব্যাুরো প্রধান ইউরোপ :

ইউরোপের উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে পরিচিত ইতালি , আর ইতালির অন্যতম ভাসমান পর্যটন নগরী হিসেবে পরিচিত জলকন্যা খ্যাত ভেনিস। প্রতি বছর দেশ বিদেশের লাখো পর্যটকদের পদচারনায় মুখরিত থাকে ভেনিস নগরী । আর পর্যটকদের আগমনের কারনে এখানকার ব্যাবসা বানিজ্য পর্যটক নির্ভর। প্রতি বছর পর্যটকদের চাপ সামলাতে হিমশিম খেতে হয় স্হানীয় প্রশাসনের । সাম্প্রতিক সময়ে পর্যটকদের উপস্থিতি কমাতে ও পরিবেশ দূষণ রোধে ভেনিসের মেয়র আইন জারী করেছেন ভেনিসে প্রবেশ করতে হলে দিতে হবে ৫ ইউরো প্রবেশ ফি। এই সিদ্ধান্তের কারনে চলছে আলোচনা সমালোচনা।
গত ২৫ শে এপ্রিল ছিলো ইতালির ৭৯ তম স্বাধীনতা দিবস। সেই দিন থেকেই আদায় করা শুরু হয়েছে প্রবেশ ফি । ওয়েব সাইডের মাধ্যমে , যে কোন কাফ অফিস , বা তাবাক্কী ( অর্থাৎ সিগারেটের দোকান) থেকে ভেনিসে ৫ ইউরো পরিশোধ করে ভেনিসে প্রবেশের কারন ও নিজ তথ্য সহ পাস প্রিন্ট করে ভেনিসে প্রবেশ করতে হবে। অন্যথায় গুনতে হতে পারে জরীমানা। এদিকে ভেনিস পাশ চালু করায় ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন ব্যাবসায়ীরা। ভপনিস প্রবাসী বাংলাদেশী ব্যাবসায়ী নিপু জানান, অন্যান্ন বছরের তুলনায় চলতি বছর ভেনিসে প্রবেশ ফি নির্ধারণ করায় পর্যটকের উপস্থিত কম হওয়ায় প্রবাসী বাংলাদেশী ব্যাবসায়ী সহ ইতালিয়ানদের বিক্রি কিছুটা কম হচ্ছে বলে দাবী করেন । ভেনিস বাংলাদেশ প্রেসক্লাব ইতালির প্রধান উপদেষ্টা কলামিস্ট ও সাংবাদিক পলাশ রহমান জানান, ১৪ বছরের বেশি যাদের বয়স সেই সব পর্যটকদের এই পাস নিতে হবে। তবে ভেনিসের রেসিডেন্স কার্ড বা ভেনিসে যারা কাজ করেন তাদের একবার এই কার্ড তুললেই চলবে কোন প্রকার ফি ছাড়া। আর ভেনেতো বিভাগে যারা বসবাস করছেন , যাদের রেসিডেন্স কার্ড ভেনেতো বিভাগের মধ্যে তারা যতবার ভেনিসে আসবেন ততোদিন এই কার্ড তুলে ভেনিসে প্রবেশ করতে হবে কোন প্রকার ফি প্রদান ছাড়াই। তবে অন্য শহর হতে ভেনিসে ঘুরতে আসলে দিতে হবে ফি। তবে যাদের হোটেল বুকিং করা থাকবে তাদের তাদের ভেনিস সিটি টেক্স পরিশোধ থাকার কারনে ৫ ইউরো দিতে হবে না।
ভেনিস পাসের জন্য গত ১৬ ই জানুয়ারি ২০২৪ হতে পর্যটকদের জন্য অনলাইনে বুকিং শুরু করা হয়েছে। ২৫ শে এপ্রিল থেকে কার্যকর করা ভেনিস পাসের নিয়ম চলেছে ৩০ শে এপ্রিল পর্যন্ত। তবে ৫ ই মে থেকে শুধুমাত্র শনি ও রবিবার নিতে হবে ভেনিস পাস পর্যটকদের ।
তবে স্হানীয় প্রশাসনের দাবী অনেক পর্যটক একদিনের জন্য ঘুরতে আসলে সাথে খাবার নিয়ে আসে ও অতিরিক্ত খাবার না খাওয়া হলে যত্রতত্র আবর্জনা ফেলে রেখে যায়, যা কিনা পরিবেশ রক্ষায় হুমকি বয়ে আনে। তবে ভেনিস ও আশেপাশের শহরে বসবাসরত বাংলাদেশীদের অভিমত মিউজিয়াম খ্যাত ভেনিসের ব্যাবসায়ীদের ব্যাবসা টিকিয়ে রাখতে ও পর্যটকদের লাইনে দাঁড়িয়ে ভেনিস পাস নিতে যে সময় টা ব্যায় হয় তাতে অনেকেই বিরক্ত বোধ করেন। ভেনিসে বাংলাদেশী কমিউনিটির নেতা ও ভেনিস বাংলা স্কুলের সভাপতি সৈয়দ কামরুল সারোয়ার বলেন, মিউজিয়াম ও জলকন্যা খ্যাত ভেনিসকে পূনরায় জমজমাট করতে মেয়রের সিদ্ধান্ত কে সিথিল করে ভেনিস পাস উঠিয়ে নিলে পর্যটকদের পদচারনায় আবারও মুখরিত হয়ে উঠবে ভেনিস শহর।