ঢাকারবিবার , ২৯ জানুয়ারি ২০২৩

নওগাঁয় বিষাক্ত গ্যাস বড়ি খেয়ে সোমা আক্তার ও পান্না হোসেন নামে ২ জন আত্মহত্যা

উজ্জ্বল কুমার সরকার
জানুয়ারি ২৯, ২০২৩ ৭:৩৪ অপরাহ্ণ
Link Copied!
   
                       

উজ্জ্বল কুমার সরকার-নওগাঁ জেলা প্রতিনিধিঃ

নওগাঁর বদলগাছীতে বিষাক্ত গ‍্যাস ট‍্যাবলেট খেয়ে পৃথক পৃথক স্থানে সোমা আক্তার (১৮) ও পান্না হোসেন (৬০) নামের দুই জন ব্যক্তি আত্মহত্যা করেছে। নিহত সোমা আক্তার (১৮) বদলগাছী উপজেলার বিলাসবাড়ী ইউপির হাজিপুর গ্রামের সবুজ হোসেনের মেয়ে ও পান্না হোসেন (৬০) বদলগাছী ইউপির বদলগাছী গ্রামের মৃত পিয়ার বক্সের ছেলে।
থানাও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে সোমা আক্তার (১৮) পালিত পিতার পরিবারেরগ অগোচরে ঘরের ভিতর রাখা বিষাক্ত গ‍্যাস ট‍্যাবলেট খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়লে গোংড়ানোর আওয়াজ শুনে মামী জোবেদা সহ আশেপাশের লোকজন সোমা আক্তার কে উদ্ধা করে সাথে সাথে উন্নত চিকিৎসার জন‍্য আক্কেলপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাবার পথে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় দিকে মৃত্যু বরণ করে। অপরদিকে একই দিনে সন্ধ্যা ৭টায় পারিবারিক কলহের জেরে পান্না হোসেন (৬০) বিষাক্ত গ‍্যাস টাবলেট খেয়ে অসুস্থ হলে সাথে সাথে পরিবারের লোকজন উদ্ধার করে বদলগাছী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে তাঁকে উন্নত চিকিৎসার জন‍্য নওগাঁ সদর হাসপাতালে নিলে রাত আনুমানিক সাড়ে ১১টায় দিকে মৃত্যু বরণ কর । খবর পেয়ে থানা পুলিশের পৃথক দুইটি দল ঘটনাস্থল দুটি পরিদর্শন করেন। খবর পেয়ে পত্নীতলা সার্কেল এ এস পি আফতাব উদ্দীন, বদলগাছী থানা অফিসার ইনচার্জ আতিয়ার রহমান ও ওসি (তদন্ত) রায়হান হোসেন বিলাসবাড়ী হাজিপুর গ্রামের সোমা আক্তারের মৃত্যুর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ ব‍্যপারে বদলগাছী থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আতিয়ার রহমান বলেন, সোমা আক্তারের লাশের সুরুতহাল রিপোর্ট করে লাশের ময়না তদন্তের জন‍্য নওগাঁ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট এলে বিস্তারিত জানা যাবে। অপর ব্যক্তির পরিবারের কোন আপত্তি না থাকায় পান্না হোসেনের লাশ দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। থানায় পৃথক দুটি ইউডি মামলা করা হয়েছে